মানুষের বিবর্তনের চিত্র ও একটি প্রশ্ন

ডারউইনিয়ান বিবর্তন অনুসারে, একটি প্রজাতির মধ্যে যে প্রাণীটি প্রকৃতির সাথে এডাপ্টেড তথা একটি Given পরিবেশে যে প্রাণীটি সবচাইতে ফিট সেটি টিকে যাবে। বাকি গুলো বিলুপ্ত হবে। সুতরাং যদি ধরি Ape(বা এপ জাতীয় প্রাণী) থেকে এক পর্যায়ে মানুষ এসেছে। তাহলে বুঝতে হবে যে, এপ দের  জীবনে কোন একটি প্রাকৃতিক পরিবেশ এমন এসেছিল যেটা তাদের জন্য প্রতিকূল ছিল যে পরিবেশে বাই চান্স তাদের মধ্যে এমন কিছু পরিবর্তন হল যে, সৃষ্ট পরবর্তী প্রজাতিটি এই নতুন পরিবেশে এডাপ্টেড হয়ে টিকে গেল। এভাবে ক্রমান্বয়ে মানব প্রজাতি এসেছে।

একটু গভীর ভাবে লক্ষ্য করুন, এখানে কিছু সমস্যা আছে। যদি বিষয়টা এরকম হয়ে থাকে তাহলে প্রশ্ন জাগে যে উক্ত পরিবর্তিত পরিবেশে যদিও পরিবর্তিত প্রজাতিটি (যদিও মলিকিওলার বায়োলোজি অনুযায়ী এটা অসম্ভব) বেঁচে যাবে কিন্তু পূর্ববর্তী প্রজাতিটিতো বিলুপ্ত হওয়ার কথা। কেননা উক্ত পরিবর্তিত পরিবেশে পূর্ববর্তী প্রজাতিটির জন্য Suitable না। কিন্তু আমরা তা দেখছি না।

দ্বিতীয়ত, যদি এ ধরণের পরিবর্তনের সুযোগ থেকে থাকে তা Experiment করা সম্ভব। কেননা, এখন যদি এপদেরকে উক্ত ভিন্ন ধরনের পরিবেশের সম্মুখীন করা হয় তাহলে আমরা তাদের মধ্যে কিছু এডাপটেশনাল পরিবর্তন দেখতে পাব। কিন্তু বাস্তবে কি তা সম্ভব? সম্ভব নয়, কারণ কোন এপকে যদি তার খাদ্য থেকে বঞ্চিত কোন পরিবেশে রাখা হয় তাহলে সে কি তার খাদ্যাভাস পরিবর্তন করে ফেলবে? যদি তা না করতে পারে তবে তো সে মারা পড়বে। যদি বলা হয় এটা দীর্ঘ সময়ের ব্যাপার। প্রশ্ন হল একটি কোন এডাপটেশন পরবর্তী প্রজন্মে প্রবাহিত হওয়ার জন্য তো আগে মা, বাবাকে বেচে থাকতে হবে। তবেই না পরবর্তী অফস্প্রিং আমরা আশা করতে পারি।  

তৃতীয়ত, কেউ বলতে পারেন যে এপদের একটা অংশের মধ্যে এই বিবর্তন হয়েছে । কেননা উক্ত অংশটিই পরিবর্তিত পরিবেশে পড়ে গিয়েছিল। বিষয়টা কি সম্ভব? যেমন এপরা কিভাবে চার পা থেকে দুপেয়ে প্রাণীর দিকে এগুলো এ সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলা হয় ৭ মিলিয়ন বছর আগে আইস এজের সময় যখন রেইন ফরেস্ট গুলো ধ্বংস হয়ে পড়ে তখন নাকি Ape দের একটা অংশ তাদের খাদ্যাভাস পরিবর্তন করে, Savanna (অধিক ঘাস ও খুবই কম সংখ্যক ছোট গাছ যুক্ত জায়গা), মৃত পশুর চামড়া, মাংস খেতে শুরু করে আর দু পায়ে হাটার জন্য এডাপ্টেড হতে শুরু করে!

  “It was initially thought that an Ice Age, around seven million years ago, caused forests to shrink thus prompting some members of the species to venture into the savannah, becoming the ancestors of humanity.”

(http://en.wikipedia.org/wiki/Chimpanzee-human_last_common_ancestor)

কিন্তু এই সিনারিওতে প্রবলেম টা হল, আইস এজকি শুধু নির্দিষ্ট ফোকাল কোন এরিয়াতে হয়েছিল? যেহেতু এপদের থেকে মানুষ প্রথম আফ্রিকাতেই এসেছিল বলা হয়, তাহলে ধরে নেই যে উপরোক্ত ঘটনাটি আফ্রিকাতে ঘটেছিল সেই হিসেবে তো আফ্রিকাতে কোন এপ থাকার কথা নয়। কেননা উক্ত পরিবর্তিত পরিবেশে এপরা টিকে থাকতে পারবে না বরং টিকে থাকতে পারবে শুধু তারাই যারা পরিবর্তিত পরিবেশে এডাপ্টেড হয়েছিল।

ডারউইনবাদীরা ডারউইনবাদকে লামার্কিয়ান মতবাদ থেকে পৃথক করতে বলেন। অর্থাৎ উচু গাছের পাতা খেতে গিয়ে জিরাফ লম্বা হয় নি। বরং জিরাফের মধ্যে যেই ভ্যারাইটিটির উচু গলা ছিল তারাই অধিক পাতা খেতে পেরে টিকে যায়। কিন্তু উপরের এপের থেকে দ্বিপদী মানুষ আসার যে কথাটি বলা হল, এর মধ্যে কাজ করছে লামার্কিয়ান লজিক। অর্থাৎ গাছে বসবাসরত চতুর্পদী শিম্পাঞ্জি মাটিতে পড়ে গিয়ে দ্বিপদী হতে শুরু করে। (লক্ষণীয় এক্ষেত্রে এপটির নেকড়ে বা বাঘে পরিণত হলে আরও সুবিধে, কেননা এতে তাদের স্পিড আরও বেড়ে যাবে, অথবা সাভানার এবানডেন্ট ঘাস খেতে খেতে গরুতে পরিণত হওয়ার কথা এবং সারভাইভাল অব ফিটেস্ট ল অনুসারে এদের উপরই বিবর্তনীয় সিলেকশন প্রেসার বাড়বে) 

কিন্তু যদি ডারউইনিয়ান লজিক আনা হয় তাহলে বলতে হয় যে কিছু Random Mutation এর মাধ্যমে দু পায়ে চলতে পারা এপ তৈরী হয়েছে যেটা সাভানাতে টিকে গেছে! ভ্যারাইটি ( যদিও আমরা এখনও কিছু এপ ভ্যারাইটি দেখি যারা কিছু সময়ের জন্য হলেও দু পায়ে দাড়াতে পারে যেমন বোনোবো, Pan Paniscus)  এক্ষেত্রে প্রবলেম হল মিউটেশনের মাধ্যমে নতুন কোন জেনেটিক তথ্য যোগ হয় না, বরং এক্সিসটিং জেনেটিক তথ্যের মধ্যে ক্ষতি সাধন হয় যার সবই ডিভাসটেটিং। তাহলে কিভাবে ঐ নতুন পরিবর্তিত প্রজাতিটির উদ্ভব হল তার প্রশ্ন থেকে যায়। অর্থাৎ Survival of Fittest  হওয়া আগে ব্যাখ্যা করা দরকার Arrival of the fittest। তথাপি যে পরিবেশে এপ টিকে থাকতে পারবে না সে পরিবেশ অতিবাহিত হওয়ার পরও আমরা এপকে টিকে থাকতে দেখছি । এটা কিভাবে সম্ভব?  কেননা শিম্পাঞ্জি, Pan troglodyte কে আমরা এখনও পাচ্ছি। অর্থাৎ ডারউইনিয়ান লজিক এনেও সমস্যা থেকে যাচ্ছে।

আরেকটা বিষয় লক্ষণীয়, বলা হচ্ছে এপ ও মানুষ একটি কমন Ancestor থেকে এসেছে অথচ মানুষের বিবর্তনীয় চিত্র দেখানোর সময় এপ থেকে মানুষ কিভাবে হল সেটা দেখানো হচ্ছে বলা হচ্ছে এপ মানুষের Closest Relative । তাহলে কোনটা জানব, কিভাবে এপ থেকে মানুষ এল নাকি কিভাবে Chimpanzee Human Last Common Ancestor নামক মিসিং লিংক(!) থেকে মানুষ এল? আর এপদের এবং মানুষদের মধ্যে এখন কোন Random Genetic ভ্যারাইটি (যা নতুন কোন প্রজাতি সৃষ্টি করে) আমরা কেন হতে দেখছিনা সে প্রশ্নটাতো থেকেই যায়।

এপ থেকে মানুষের মধ্যে যে ট্রানজিশনাল ফসিলের কথা বলা হয়, তার মাঝে Ardipithecus ramidus, Australopithecus,  Homo habilis-কে এপদের ভ্যারাইটি এবং Homo erectus, Neanderthals, Java Man, Piking man-কে বিলুপ্ত মানুষের বিভিন্ন রেস হিসেবে সহজেই চিহ্নিত করা যায়। মানুষের Skull cap ও ওরাং ওটাং-এর Jaw bone ব্যাবহার করে Piltdown Man এবং একটি পিগের দাতের উপর ভিত্তি করে Nebraska Man নামক মধ্যবর্তী প্রজাতি দেখানোর প্রতারণা Paleontology-কে প্রশ্নবিদ্ধ করে।  

এ সব কিছু মিলে মানুষের বিবর্তনের চিত্রটা ভ্রান্ত বলেই মনে হয়। বিবর্তনবাদীরা একটু সমাধান করে দিবেন কি?

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s